‘অলৌকিক শক্তি’ পেতে মাটি খুঁড়ে নবজাতকের লাশ তোলে কিশোরেরা

‘অলৌকিক শক্তি’ লাভের আশায় গভীর রাতে নবজাতকের লাশ মাটি খুঁড়ে বের করে এনেছিল পাঁচ কিশোর। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ জানায়, ইন্টারনেটে ভিডিও দেখে উদ্বুদ্ধ হয়ে তারা এ কাজে নেমেছিল। আদালতের মাধ্যমে ওই পাঁচজনকেই কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গত সোমবার গভীর রাতে রাজধানীর শ্যামপুরের পোস্তগোলা এলাকার শ্মশানঘাটে সমাধি দেওয়া সদ্য মৃত এক নবজাতকের লাশ তুলে আনার ঘটনায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। পাঁচ কিশোর লাশটির মাথা বিচ্ছিন্ন করে সিঁদুর ও চন্দন দিয়ে তন্ত্র সাধনা শুরু করে। আশপাশের লোকজন এই খবর দিলে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

শ্যামপুর থানা-পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাজধানীর গ্রিন রোডের একটি হাসপাতালে শ্যামপুরের এক হিন্দু দম্পতির কন্যাসন্তান জন্ম নেয়। জন্মের এক ঘণ্টা পরই শিশুটি মারা যায়। পরে হিন্দু সম্প্রদায়ের নিয়ম অনুসারে রাতেই শ্যামপুরের শ্মশানঘাটে তাকে সমাহিত করা হয়। ওই রাতেই শাঁখারীবাজার থেকে আসা পাঁচ কিশোর শিশুটিকে কবর থেকে তুলে ফেলে। এরপর জবাই করে সিঁদুর ও চন্দন দিয়ে পূজা শুরু করে।

শ্যামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, শিশুটিকে সে রাতেই আবারও সমাহিত করা হয়েছে। ঘটনাটির সঙ্গে জড়িত কিশোরদের বয়স ১২ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা বলেছে, ইন্টারনেটের মাধ্যমে নবজাতকের মাথা পূজা করলে অলৌকিক শক্তি অর্জন করা যায় এমন ভিডিও দেখেছে তারা। এরপর এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন