ক্ষমতায় গেলে বায়তুল মোকাররম চত্বর বানাব কবিতার তাজমহল: ইসি মাহবুব

ডেইলি ইসলাম: ক্ষমতায় গেলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম চত্বর দখল করে কবিতার তাজমহল বানানোর ঘোষণা দেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

রোববার নির্বাচন কমিশন ভবনে আয়োজিত বাংলা বর্ষবরণের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা দেন তিনি।

নির্বাচন কমিশনার তিনি নিজেও একজন সাহিত্যিক।

আগামী নির্বাচনে ভালবাসার প্রতীক গোলাপ ফুল মার্কায় চাইলেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুককার।

তিনি বলেন, আসুন আমরা কবিদের একটি রাজনৈতিক পার্টি বানিয়ে ফেলি। আগামী ইলেকশনে আপনারা কবিদের ভালবাসার প্রতীক ‘গোলাপ ফুল’ মার্কায় ভোট দেবেন। আমরা সারাদেশে এমন কবিতার চাষ করব যাতে বিদেশ থেকে সাহায্য আনতে হবে না।

এ সময় ক্ষমতায় গেলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম চত্বর দখল করে কবিতার তাজমহল বানাবেন বলেও ঘোষণা দেন।

ছোট গল্প লিখে বেশি পরিচিত পাওয়া এই কমিশনার আরও বলেন, যারা গল্প পড়ে বা প্রবন্ধ লিখে তাদের আমরা ধরে ধরে জেলখানায় পাঠাব। কেউ কবিতার বিরুদ্ধচারণ করলে জনগণের আদালতে তাদের বিচার হবে। আমাদের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে সবাইকে কাব্য প্রেমের দীক্ষা নিতে হবে। আগামী ইলেকশনে আপনারা কবিদের গোলাপ ফুল মার্কায় ভোট দেবেন। আমরা সারাদেশে এমন কবিতার চাষ করব যাতে বিদেশ থেকে সাহায্য আনতে হবে না। আমরা মধ্যপ্রাচ্যে কবিতা সাপ্লাই করে তার বদলে তেল আনব। আমরা সনেট কবিতা দিয়ে এটম বোম তৈরি করব। কারো সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে আমরা এমন সব কবিতা পড়ে শোনাবো যাতে শত্রুপক্ষের সৈন্যদল যুদ্ধক্ষেত্র থেকে প্রাণভয়ে পালিয়ে যায়। আমাদের আভ্যন্তরীণ নীতি হবে কবিতার সার্বভৌমত্বের প্রতি অবিচল আস্থা। আমাদের বৈদেশিক নীতি হবে ইটের বদলে পাটকেল কিংবা কবিতার বদলে কবিতা। আন্তর্জাতিক শেয়ার মার্কেটে আমাদের কবিতা চড়া দামে বিক্রি হবে। ভাইসব, যারা কবিতার দলে তারা সবাই একবার হাত তুলুন। বাচ্চারা জোরে তালি বাজাও। তোমরাই একমাত্র ভবিষ্যৎ। তোমাদের মধ্যে ঘাপটি মেরে আছে আগামী দিনের রবীন্দ্রনাথ কিংবা নজরুল। যুবকেরা স্লোগান দিন- কবি ও কবিতা জিন্দাবাদ।

তিনি বলেন, আমি আপনাদের মাঝে এমন কবিতা পড়তে চাই যাতে তালি দিতে দিতে সবার হাত ব্যাথা হয়ে যায়। এমন একটি কবিতা লিখতে চাই যাতে রোমান্টিক তরুণেরা আমার দিকে হিংসার দৃষ্টিতে তাকাবে। এমন একটি কবিতা যাতে অফিসে আমার প্রমোশন কেউ ঠেকাতে পারবে না । কিন্তু দুঃখের বিষয় আমার পক্ষে তেমন কোনো কবিতা লেখা সম্ভব হলো না। আমার কবিতা পড়ার জন্য আপনারা যারা দুঃখিত হয়েছেন তাদের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আর আপনারা আর মাত্র কিছুদিন ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করুন। আমরা খুব শিগগিরই আপনাদের জন্য মহামূল্যবান কবিতা লিখব।

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে দিনভর নানান অনুষ্ঠান ও খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সেখানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদাসহ অন্যান্য কমিশনার, নির্বাচন কমিশন সচিব, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন