ট্রাম্পকে সন্ত্রাসীদের প্ররোচক বলায় হত্যার হুমকি পাচ্ছেন ইলহান ওমর

ডেইলি ইসলাম: ট্রাম্পের কারণে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বাড়ছে’ বলে বক্তব্য দেয়ায় ক্রমাগত হত্যার হুমকি পাচ্ছেন মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য ইলহান ওমর।

প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যানসি পেলোসির একটি ঘোষণার পর ইলহান এ বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি মিনেসোটার এই ডেমোক্র্যাট সদস্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছেন। এ ছাড়া ওই ভিডিওতে তুলে নিতে ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পেলোসি।

যুক্তরাষ্ট্রে ২০১১ সালের সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে এই মুসলিম কংগ্রেস সদস্যের মনোভাব তাচ্ছিল্যপূর্ণ বলে একটি ভিডিওর মাধ্যমে প্রচার করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর পর থেকেই তিনি একের পর এক হত্যার হুমকি পাচ্ছেন।

ট্রাম্প উগ্র ডানপন্থীদের খেপিয়ে তুলছেন বলে অভিযোগ তুলে ইলহান ওমর বলেন, এটি মানুষের জীবনকে ঝুঁকিতে ফেলে দিচ্ছে। অবশ্যই এ খেলা বন্ধ করা উচিত।

হাউস স্পিকারের আহ্বানের পর ট্রাম্পের টুইটার ফিড থেকে ভিডিওটি আনপিনড করা হয়েছে। কিন্তু সেটি মুছে দেয়া হয়নি।

এ ঘটনায় ট্রাম্পের সমালোচনা করেছেন পেলোসি। কেউ কেউ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মুসলিমবিদ্বেষ উসকে দেয়ার অভিযোগ তুলেছেন।

এর আগে ইলহান ওমরকে হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগে নিউইয়র্কের এক ট্রাম্প ভক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ইলহান বলেন, উগ্র ডানপন্থী, শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীদের সহিংস অপরাধ এবং অন্যান্য ঘৃণ্য অপকর্ম বিশ্বজুড়ে বেড়েই চলছে। কাজেই এ মাটিতে সর্বোচ্চ পদ দখলকারী যে তাতে উসকানি দিচ্ছেন, তা আমরা অস্বীকার করতে পারব না।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার ইলহান ৯/১১ হামলাকে গুরুত্ব দিচ্ছে না অভিযোগ করে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প। এর জবাবে ট্যুইটে এসব বলেন তিনি। খবর বিবিসি’র।

পরে ওই ভিডিওতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের ১১ সেপ্টেম্বরের হামলার ভিডিও চিত্রের সঙ্গে কংগ্রেস সদস্য ইলহান ওমরের বক্তব্য যোগ করে বোঝাতে চেয়েছেন, ১১ সেপ্টেম্বরের হামলায় নিহতদেরকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না ইলহান।

প্রতিক্রিয়ায় ইলহান ওমর আরও বলেন, ‘আমি চুপ থাকার জন্য কংগ্রেসে যাইনি। আমি মার্কিন কংগ্রেসে প্রবেশ করেছি গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে এবং এর জন্য যুদ্ধ করতে।

ইলহান ওমর প্রথম আমেরিকান-মুসলিম আইনপ্রণেতা। ২০১৬ সালে মিনেসোটার হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সদস্য নির্বাচিত হন এই নারী। কাজ করছেন, অভিবাসী ও শরণার্থী ইস্যু নিয়ে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে ইসরায়েল লবির প্রভাব নিয়ে বক্তব্য দিয়েও আলোচনায় আসেন ইলহান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন