‘ডোপ টেস্ট’ বাধ্যতামূলক হচ্ছে সরকারি চাকরিতে

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সময় বিদ্যমান অন্যান্য ব্যবস্থার সঙ্গে ‘ডোপ টেস্ট’ বাধ্যতামূলক করার নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে অন্যান্য ব্যবস্থার সঙ্গে ডোপ টেস্ট অন্তর্ভুক্ত করে এবং প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে প্রতিবেদন পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহ) এর কাছে পাঠাতে হবে।

গত ৫ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত পরিপত্র জারি করেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. আবুল কালাম আজাদ।

আগে চাকরির ক্ষেত্রে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা নেওয়া হত।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের একটি সূত্র থেকে জানা গেছে, দেশে মাদকাসক্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারি চাকরিতে ডোপ টেস্টের ব্যবস্থা না থাকায় মাদকাসক্তরাও চাকরিতে প্রবেশ করছে। এসব কারণে সরকারের বদনামের আশঙ্কায় শীর্ষ মহল থেকে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করার নির্দেশনা এসেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন