নামাজে সিজদার সুন্নত ১২টি

১. তাকবির বলা অবস্থায় সিজদায় যাওয়া। (বুখারি শরিফ ১/১১০, হাদিস : ৮০৩)

(সিজদায় যাওয়া ও সিজদা থেকে দাঁড়ানোর সময় তাকবির এক আলিফ থেকে অধিক টানা উচিত নয়। অবশ্য হাদর এবং তারতিলের পার্থক্য থাকবে)। (শামি ১:৪৮০)

২. প্রথমে উভয় হাঁটু মাটিতে রাখা। (নাসায়ি ২/২০৬, হাদিস : ১০৮৯, আবু দাউদ ১/১২২, হাদিস : ৮৩৮ সহিহ লিগাইরিহি)

৩. তারপর হাঁটু থেকে আনুমানিক এক হাত দূরে উভয় হাত রাখা এবং হাতের আঙুলগুলো কিবলামুখী করে সম্পূর্ণরূপে মিলিয়ে রাখা। (বুখারি শরিফ ১/১১৪, হাদিস : ৮২৮, সহিহ ইবনে খুজায়মা ১/৩২৪, হাদিস : ৬৪২ হাসান)

নারীরা অত্যন্ত জড়সড় ও সংকুচিত হয়ে সিজদা করবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা ১/২৪২, হাদিস : ২৭৭৭ সহিহ)

৪. তারপর উভয় বৃদ্ধাঙুলির মাথা বরাবর নাক রাখা। (মুসনাদে আহমাদ ৪/৩১৮, হাদিস : ১৮৮৯৪ সহিহ)

৫. তারপর কপাল রাখা। (মুসনাদে আহমদ ৪/৩১৭, হাদিস : ১৮৮৮০ সহিহ)

৬. অতঃপর দুই হাতের মাঝে সিজদা করা ও দৃষ্টি নাকের অগ্রভাগের দিকে রাখা। (মুসলিম ১/১৭৩, হাদিস : ৪০১/ মুস্তাদরাকে হাকেম ১/৪৭৯, হাদিস : ১৭৬১ সহিহ)

৭. সিজদায় পেট ঊরু থেকে পৃথক রাখা। (মুসলিম ১/১৯৪, হাদিস : ৪৯৬, আবু দাউদ ১/১০৭, হাদিস : ৭৩৫ হাসান)

নারীরা উভয় রানের সঙ্গে পেট মিলিয়ে রাখবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা ১/২৪২, হাদিস : ২৭৭৭ সহিহ)

৮. পাঁজরদ্বয় থেকে উভয় বাহু পৃথক রাখা। (বুখারি ১/১১২, হাদিস : ৮০৭)

নারীরা বাহুদ্বয় যথাসাধ্য পাঁজরের সঙ্গে মিলিয়ে রাখবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা ১/১৩৮, হাদিস : ২৭৮১ সহিহ)

৯. কনুই মাটি ও হাঁটু থেকে পৃথক রাখা। (বুখারি ১/১১৩, হাদিস : ৮২২)

নারীরা কনুই মাটিতে মিলিয়ে রাখবে এবং পায়ের পাতাগুলো দাঁড়ানো না রেখে (ডান দিকে বের করে) মাটিতে বিছিয়ে রাখবে আর আঙুলগুলো যথাসাধ্য কিবলামুখী রাখবে। (মারাসিলে আবি দাউদ ১১৯, হাদিস : ৮৭ সহিহ)

১০. সিজদায় কমপক্ষে তিনবার সিজদার তাসবিহ (সুবহানা রাব্বিয়াল আ’লা) পড়া। (আবু দাউদ : ১/৫৪২, হাদিস : ৮৭০ হাসান)

১১. তাকবির বলা অবস্থায় সিজদা থেকে ওঠা। (বুখারি ১/১১৪, হাদিস : ৮২৫)

১২. প্রথমে কপাল, (তারপর নাক) তারপর উভয় হাত, তারপর উভয় হাঁটু উঠানো। (মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক ২/১৭৭, হাদিস : ২৯৫৮ সহিহ)

বি. দ্র. : দাঁড়ানো অবস্থা থেকে সিজদায় যাওয়ার সময় হাঁটু মাটিতে লাগার আগ পর্যন্ত বুক সম্পূর্ণ সোজা রাখা জরুরি। অপারগতা ছাড়া বুক ঝুঁকিয়ে সিজদায় গেলে একাধিক রুকু হয়ে সুন্নাতবিরোধী হবে। দুই সিজদার মধ্যে সম্পূর্ণ সোজা হয়ে এক তাসবিহ পরিমাণ স্থির হয়ে বসা জরুরি। (সাহাবাদের আমল থেকে উদ্ধৃত)

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন