মঙ্গল শোভাযাত্রা বন্ধের দাবি

ডেইলি ইসলাম: পহেলা বৈশাখ হিন্দু সংস্কৃতি। এটাকে বাঙালি সংস্কৃতি বলা যাবে না। যদি হিন্দুরা পহেলা বৈশাখ পালন করতে চায় তাহলে আমাদের কোনো বাঁধা নেই। কিন্তু পহেলা বৈশাখে মঙ্গল শোভাযাত্রার নামে নগ্নযাত্রা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চলবে না। বাংলাদেশের ৯০ শতাংশ মানুষ মুসলমান। আমরা আশা করব সরকারের শুভ বুদ্ধি উদয় হবে এবং মঙ্গল শোভাযাত্রা বন্ধ করবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ‘কওমি ছাত্র ঐক্য পরিষদের ব্যানারে কওমি মাদরাসার শিক্ষার্থীরা এমন দাবি জানান।

শনিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার প্রধান মাদ্রাসা কান্দিপাড়াস্থ জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার সামনে থেকে কওমি ছাত্র ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়।

পরে সেখানে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন কওমি ছাত্র ঐক্য পরিষদ নেতা হাফেজ মাওলানা আনাস সরকার, হাফেজ মাওলানা ইসহাক আল মামুন, মাওলানা মো. ওয়ালিউল্লাহ্ প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, পহেলা বৈশাখ হিন্দু সংস্কৃতি। এটাকে বাঙালি সংস্কৃতি বলা যাবে না। যদি হিন্দুরা পহেলা বৈশাখ পালন করতে চায় তাহলে আমাদের কোনো বাঁধা নেই। কিন্তু পহেলা বৈশাখে মঙ্গল শোভাযাত্রার নামে নগ্নযাত্রা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চলবে না। বাংলাদেশের ৯০ শতাংশ মানুষ মুসলমান। আমরা আশা করব সরকারের শুভ বুদ্ধি উদয় হবে এবং মঙ্গল শোভাযাত্রা বন্ধ করবে।

উল্লেখ্য, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্যা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসন। সকালে মঙ্গল শোভাযাত্রার পর লাঠি খেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ দিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে বর্ণাঢ্য আয়োজনে এবার বৈশাখী উৎসব পালনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন