বৃদ্ধ বাবাকে চড়-থাপ্পড় মারল পাষন্ড ছেলে!

স্ত্রীকে মিষ্টি খাওয়ানোর অপরাধে নিজের ছেলের হাতে অপদস্থ হলেন আশি বছর বয়সের এক বৃদ্ধ। বাবার কলার চেপে ধরে চড়ের পর চড় মেরেছে পাষন্ড সেই ছেলে।

সামাজিক মাধ্যমে লজ্জাকর এ ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ ছেলেকে গ্রেফতার করেছে।

গত ২০ অক্টোবর ঘটনাটি ঘটে পশ্চিমবঙ্গের উত্তরচব্বিশ পরগনা জেলার অশোকনগর-কল্যাণগড় পৌরসভার ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিল্ডিং মোর এলাকায়। বিজয়া দশমীর মিষ্টি মুখ করাতে বৃদ্ধ মানিকলাল বিশ্বাস (৮২) মিষ্টি খাইয়েছিলেন ডায়াবেটিস রোগী তার স্ত্রী বন্দনা বিশ্বাসকে (৭৬)। এই অপরাধেই পিতার উপর চড়াও হয় ছেলে প্রদীপ বিশ্বাস।

স্থানীয় অশোকনগর-কল্যাণগড় পৌরসভার কর বিভাগের কর্মী প্রদীপ যখন বাবার কলার চেপে ধরে চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে, তখন কাছেই দাঁড়িয়ে ছিলেন প্রদীপের স্ত্রী। কিন্তু স্বামীকে থামানোর কোনো উদ্যোগ তিনি নেননি। ছেলের হাতে বাবাকে মারের সেই দৃশ্য দূর থেকে মোবাইল ক্যামেরা বন্দি করে এক প্রতিবেশী। এরপর ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে বিল্ডিং মোর এলাকায়।

উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার পুলিশ কর্মকর্তাদের নজরেও চলে আসে মারধরের ভিডিও। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে দ্রুত গ্রেফতারের নির্দেশ যায় অশোকনগর থানায়। এরপরই বুধবার দুপুরে অভিযুক্ত প্রদীপ বিশ্বাসকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশের সামনে প্রদীপ বলেন, ‘মা ডায়াবেটিস রোগী, তাকে মিষ্টি খাওয়ানো নিষেধ। কিন্তু তার পরেও বাবা মিষ্টি খাওয়ানোয় মাথায় রাগ চেপে যাওয়াতেই চড়-থাপ্পড় মেরেছি। কিন্তু ছেলে কি করে বাবাকে মারধর করে? এই প্রশ্নের উত্তরে সকলের সামনে হাতজোড় করে ক্ষমা চেয়ে নিয়ে প্রদীপ জানান ভবিষ্যতে আরও কোনদিন এরকম কাজ তিনি করবেন না।

তবে প্রতিবেশিরা জানিয়েছেন, এভাবে মাঝে মধ্যেই ছেলের হাতে মারধরের শিকার হন বৃদ্ধ মানিকলাল বিশ্বাস।

এদিকে, কান্না ভেজা গলায় মানিকলাল জানান, আমি ছেলের অনুমতি না নিয়ে আমার স্ত্রীকে মিষ্টি খাইয়েছিলাম। এই অপরাধেই আমার ছেলে আমাকে মারধর করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন