মুফতি ইজহারুল ইসলাম ও আল্লামা আহমদ শফি, অপ্রত্যাশিত বাদানুবাদ

♦ রুকন ইনআম লোবান

মুফতি ইজহার। বহুমাত্রিক প্রতিভার নাম। বহুমুখী কর্মবীরের নাম। যাঁর কলম হতে স্বর্ণলতার মতো প্রজ্ঞা নিঃসৃত হয়। যাঁর ভাষণ অনলবর্ষী বাগ্মীতার ভূষণ। যিনি অসাধারণ উস্তাজ, অনন্য হাদিস বিশারদ, বিজ্ঞ ফিকাহবিদ, সুন্নতের সেবক, পরোপকারী যাযাবর, মজলুম জননেতা ও পর-দুঃখি কাতর আলেমে দ্বীন।

বাংলাদেশে আলেমদের মাঝে কলম, কলব ও জবানের এরকম শানদার ও শাণধার মনীষা বিরল। মুফতি ইজহার জমিদার বংশের সন্তান। চালচলন ও চিন্তা-বলনে আভিজাত্যের ছাপ পাওয়া যায়। খুব কাছ থেকে দেখেছি, তাই জানি, তাঁর মতো এরকম সাদাসিধে ফকির দরবেশ এদেশে খুবি কম।

মুফতি ইজহার অসংখ্য গুণাবলির প্রবাল। এরকম সাহসী আলেম মরহুম আমিনী ছাড়া আর কাউকে দেখি না। মুফতি ইজহার পটিয়া মাদরাসা আক্রান্ত হলে, আক্রমণের মুখে গাড়ি নিয়ে সেখানে ছুটে গেছেন। সন্ত্রাসীরা জিরী মাদরাসার জায়গা দখল করতে চাইলে, তিনি তা রুখে দেন। হাটহাজারীর মুহতামিমের সংকটে তিনি কী করেছেন, এটা সবার কাছে জানা। মানুষ, জাতি ও উম্মাহর সংকটে মুফতি ইজহারের মতো অস্থির, বেচাইন ও পেরেশানিতে কাউকে দেখিনি। এরকম সব্যসাচী মনস্বীতার মূল্যায়ন আমরা করতে পারিনি।


আহমদ শফি বিষয়ে কী বলব? আপনারা সকলে জানেন, তিনি আমাদের প্রথম আলো, শেষ চাঁদও। বাংলাদেশের সকল দীনদারদের একক অভিভাবক ও একমাত্র মিলনমেলা। তিনি ছাড়া উম্মাহকে একীভূত করার ভিন্ন কোন প্লাটফর্ম আমাদের নেই। তিনি মাদানী আলাইহির রহমতের আশীষধন্য শাগিরদে রাশিদ। তিনি বাংলাদেশের বৃহত্তম মাদরাসার মুহতামিম, বেফাকের চেয়ারম্যান ও হেফাজতের আমীর। তিনি আরো অনেক কিছু। তিনি মর্দে ক্বলন্দর।

আহমদ শফি সাহেব মুফতি ইজহারের উস্তাজ। মুফতি ইজহারের শিক্ষানবিসী জীবন আহমদ শফির তত্ত্বাবধানে চলেছে। আহমদ শফির অত্যন্ত প্রিয় শিষ্য ছিলেন মুফতি ইজহার। আহমদ শফি তো লক্ষ লক্ষ ছাত্রদের উস্তাজ। মুষ্টিমেয় যাঁদের নিয়ে আহমদ শফি গৌরব বোধ করতেন, তাঁদের ছোট্ট তালিকায় মুফতি ইজহার জ্বলজ্বল করবেন।


মুফতি ইজহারের অশেষ গুণাবলি সত্ত্বেও কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। উচ্চাঙ্গের সৃজনশীল ও মননশীল মানুষের কিছু ব্যতিক্রমী বৈশিষ্ট্য থাকে। মুফতি ইজহার ভয়ানক রকমের আবেগপ্রবণ মানুষ। সাথে সাথে খুবি স্পর্শকাতর। এই স্পর্শকাতরতা ও আবেগময়তা কখনো কখনো বিবেক বা বিবেচনার সীমান্ত ভেঙে ফেলে। এই অতি আবেগের খেসারত তিনি আজীবন দিয়ে চলেছেন। তাঁর আবেগের মাশুল আমাদেরও দিতে হয়েছে।
দুর্ভাগ্য হল, তাঁর আবেগের সুন্দর সমন্বয় আমরা কেউ করতে পারিনি। তাই তার বিপুল যোগ্যতা ও যথার্থ গ্রহণযোগ্যতার অনুপাতে ফসল ওঠেনি।

মুফতি ইজহার অহংবোধ তাঁর বংশীয় রক্ত হতে পেয়েছেন। এই অহম তাঁর অগ্রযাত্রার পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মুফতি ইজহার দ্রুত সিদ্ধান্ত নেন। প্রবল মেধাবী হওয়ার কারণে। আবার ত্বরিত সিদ্ধান্ত বদলান। এই অস্থিরতা মুফতি সাহেবের কাজকে পরিণতির বিপরীত প্রান্তে নিয়ে যায়। এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়।

কয়েকটি কাঁটা সত্ত্বেও মুফতি ইজহার আরক্ত গোলাপ। মুফতি ইজহারকে স্বজাতি কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছে। এই আফসোসও অনুপস্থিত আমাদের পাষাণ পরাণে।


মুফতি ইজহার সাহেব হুটহাট কিছু সিদ্ধান্ত নেন। এই অপরিণামদর্শী মত তাঁর ও উম্মাহর জন্যে ক্ষতির কারণ হয়েছে বারবার। শেষমেষ তিনি হেফাজতের আমীর সাহেব বিষয়ে খুবি অসুন্দর, অসাবলীল ও অগ্রহণযোগ্য কথা বলেছেন। আবেগপ্রবণ ও স্পর্শকাতর হওয়ার কারণে তিনি স্পর্ধিত মন্তব্য করেছেন। হেফাজত নিয়ে মুফতি সাহেবের অভিযোগ ফোরাম, মিটিং বা পত্র আকারে পাঠাতে পারতেন। মিডিয়া ও জনলোকে এরকম মন্তব্য অনভিপ্রেত।

পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় হেফাজত যা করেছে ও বলেছে, তা চূড়ান্ত অসুন্দর ও অকৃতজ্ঞ আচরণ। মুফতি ইজহার হেফাজতের কেউ না হলে, ইতিহাসের পাতা ছিঁড়ে ফেলতে হবে। হেফাজত কারো পারিবারিক সম্পত্তি নয়। হেফাজতের উত্থানে যাঁদের শ্রম ও জল আছে, তাঁদের অস্বীকার করে হেফাজত হেফাজতের অভ্যুদয়কে অস্বীকার করেনি? জানি না। হেফাজত প্রতিষ্ঠায় মুফতি ইজহারের অবদান কী? সেটি সকলে জানে। হেফাজত অসত্য বিবৃতি দিলে, সেটি সত্য হয়ে যায় না।

হেফাজতের অমসৃণ বিবৃতির পর মুফতি ইজহার নাতিদীর্ঘ প্রবন্ধ লিখেছেন। সেটি আমার মোটেও পছন্দ হয় নি। যদিও আমি মুফতি সাহেবকে এক যুগ ধরে চিনি। ইটের বদলা তিনি পাটকেল দিয়ে দেন। আহমদ শফি বিশাল মানুষ হওয়া ছাড়াও মুফতি ইজহারের সরাসরি উস্তাজ। সম্ভবত মুফতি সাহেব খেলাফতও পেয়েছেন আহমদ শফি সাহেব হতে। কোটি মানুষের হৃদয়ের প্রিয়জনকে এভাবে মুক্ত মিডিয়ায় অপমান করা ঠিক হয়নি।

যতই ভুলভাল থাকুক, আমাদের শেষ মনজিল আমরা হারাতে পারি না। আহমদ শফিও বাতিল হলে, আমরা কাকে সম্বল করে অগ্রসর হব? আরেকজন আহমদ শফির জন্মের জন্য তারাদের একশো বছর কাঁদতে হবে। মুফতি ইজহারের মতো রতন হেফাজতের কেউ না হলে, বুঝতে হবে, হেফাজত হেফাজতে নেই।

আল্লাহ সকলকে সহীহ সমঝ দান করুন।
আমিন!

লেখক: গবেষক ও কবি

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন