বালাকোটে ভারতের বোমাবর্ষণে মারা গিয়েছিল শুধু একটি কাক!

গত মঙ্গলবারের পাকিস্তান সীমান্ত বালাকোটে ভারতের বিমান হামলায় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদের ৩০০ জন নিহত হয়েছে বলে দাবি জানিয়েছিল নয়াদিল্লি।

২১ মিনিটের ওই অভিযানে ১ হাজার কেজি ওজনের পাঁচ থেকে ছয়টি লেজার গাইডেড বোমা পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বালাকোট, মুজাফফরাবাদ, চোকথি-এই তিন জায়গায় ফেলা হয়।

আল জাজিরা জানিয়েছে, তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। এমনকি হতাহতের কোনো ঘটনাও ঘটেনি। কোনো জঙ্গি ঘাঁটিতে নয়, বালাকোটের পাহাড়ি এলাকায় ফাঁকা বোমা হামলা করেছে ভারত।

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়েটার্স জানিয়েছে, এ হামলায় আহত হয়েছেন বালাকোটের একমাত্র বাসিন্দা ৬২ বছর বয়সী নুরাহ শাহ।

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের বালাকোটের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জাবা গ্রামের অন্তত ১৫ জনের সঙ্গে কথা বলেছে রয়টার্স। তারা কেউ নুরাহ শাহ আহত হওয়া ছাড়া অন্য কোনো তথ্য জানেন না বলে জানিয়েছেন।

রয়টার্সকে জাবা গ্রামের বাসিন্দা নুরাহ শাহ বলেন, ‘মঙ্গলবার ভোরে তার মাটির তৈরি বাড়িটি কেঁপে উঠে এবং ডান চোখের ওপরের দিকে সামান্য একটু কেটে যায়।’

জাবা গ্রামের আরেক অধিবাসী আব্দুর রশীদ বলেন, ‘ওই দিন ভোরে বিস্ফোরণে সবকিছু কেঁপে উঠেছিল। তবে এতে কোনো মানুষ মারা যায়নি। পাহাড়ের বেশ কিছু পাইন গাছ মাটিতে হেলে গেছে। তবে একটি কাক মারা যেতে দেখেছি।’

সকালে মাটিতে চারটি বিশাল গর্ত ও কিছু স্পিলিন্টার গাছে বিদ্ধ অবস্থায় দেখতে পেয়েছেন বাসিন্দারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন