কিশোরগঞ্জ সদরের বৌলাইয়ে হচ্ছে পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়

অবশেষে কিশোরগঞ্জে হতে যাচ্ছে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়। ইতোমধ্যে কিশোরগঞ্জের সদর উপজেলার বৌলাই ইউনিয়নের জামতলা এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য জায়গা নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ অক্টোবর) প্রস্তাবিত স্থানটি পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পূর্ণাঙ্গ এই বিশ্ববিদ্যালয়টি।

এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) দুলাল চন্দ্র সূত্রধর, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহদী হাসান ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হাসেম রনি জেলা প্রশাসকের সাথে পরিদর্শনে অংশ নেন এবং বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের বিভিন্ন বিষয়ে মতামত প্রদান করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য কমপক্ষে ১০০ একর জায়গার প্রয়োজন। কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বৌলাই ইউনিয়নের জামতলা এলাকায় প্রস্তাবিত জায়গাটির মধ্যে খাস জমি ছাড়াও ব্যক্তি মালিকানাধীন কৃষি জমি রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গার জন্য ব্যক্তি মালিকানাধীন কৃষি জমি অধিগ্রহণ করা হবে। শীঘ্রই জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু করা হবে বলেও সূত্রটি জানিয়েছে।

গত ৮ অক্টোবর সরকারি গুরুদয়াল কলেজ মাঠের গণসংবর্ধনায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ খুব তাড়াতাড়ি কিশোরগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে বলে জানান।

তিনি বলেছিলেন, ‘আমি বছর দুয়েক আগে আজিম উদ্দিন হাই স্কুলে যখন এসেছিলাম, তখনই বিশ্ববিদ্যালয়ের কথা বলে গিয়েছিলাম। কিন্তু সেটি হয়নি। আমার পরে কাজ শুরু করে নেত্রকোনায় বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে গেছে। আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি নিয়োগ দিয়েছি। কিশোরগঞ্জে এটা আমি এখনো করতে পারিনি। এটা আমার ব্যর্থতা। তবে আমি ব্যর্থ থাকতে চাই না। খুব তাড়াতাড়ি কিশোগঞ্জে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় হবে। এবং এ বছরই এটি হবে।’

পরে রাষ্ট্রপতি গত ১০ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রস্তাবিত ৩টি স্থান পরিদর্শন করেন।

জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী জানান, তিনটি স্থান পরিদর্শন শেষে বৌলাই ইউনিয়নের জামতলা এলাকায় ভূমিটির পক্ষেই মতামত প্রকাশ করায় ওই স্থানটিকেই নির্বাচিত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন