ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানায় পীযুষকে গ্রেফতার করুন : আল্লামা আশরাফ আলী

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের অভিভাবক পরিষদের চেয়ারম্যান শাইখুল হাদীস আল্লামা আশরাফ আলী বলেছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। জাহেলী যুগ থেকে এপর্যন্ত সকল অন্যায় ও অবিচারকে চ্যালেঞ্জ করে ইসলাম সাম্য ও শান্তি প্রতিষ্ঠা করেছে। হাজার বছর ধরে মানুষ ইসলামের সুশৃঙ্খল ও সুন্দরতম বিধানের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে ইসলামের সুশীতল ছায়াতলে আশ্রয় গ্রহণ করেছে। আজকে সারা দুনিয়াব্যাপী শান্তির ধর্ম ইসলামকে কুলষিত করার জন্য ইসলাম বিরোধী শক্তিগুলো বিভিন্ন ধরণের ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো সন্ত্রাসবাদ। ইসলাম কখনোই এধরণের সন্ত্রাসবাদ সমর্থন করে না। দেশের মূল ধারার ইসলামপন্থি মানুষ বরাবরই সন্ত্রাসবাদের বিরোধিতা করে এসেছে এবং সাধারণ জনগণকে এব্যাপারে সচেতন করে আসছে।

তিনি আজ বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

শাইখুল হাদীস আল্লামা আশরাফ আলী আরো বলেন, আমরা যেভাবে সন্ত্রাসবাদের বিরোধিতা করি ঠিক তেমনি সন্ত্রাসবাদ বিরোধিতার নামে ইসলামের বিধি-বিধানকে কটাক্ষ করা সহ্য করতে পারি না। মুসলমানদের এদেশে পীযুষ বন্দোপাধ্যায় ‘‘সম্প্রীতি বাংলাদেশ’’ নামক একটি সংগঠনের নামে অসম্প্রীতি ও বিশৃংখলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। যা এদেশের লক্ষ কোটি মুসলমান কখনোই বরদাস্ত করবে না। ইসলামের আবশ্যকীয় বিধান দাড়ি, টুপি আর টাখনোর উপর কাপড় পরিধান, ধর্ম চর্চা ও ধর্মীয় বিধি বিধান পালনকে সন্ত্রাসবাদের লক্ষণ হিসেবে প্রচার করে এদেশের মানুষের সম্প্রীতিতে আঘাত হানা পীযুষ বন্দোপাধ্যায় সহ সংগঠনটির সাথে জড়িত সকলকে অতিসত্ত্বর গ্রেফতার করতে হবে।

সংগঠনের আমীর শাইখুল হাদীস মাওলানা ইসমাঈল নূরপুরীর সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হকের পরিচালনায় ইফতার মাহফিলে রাজনীতিবিদদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর সহ সভাপতি মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা রেজাউল করীম জালালী, মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমী, মাওলানা সাঈদ নূর, ইসলামী ঐক্য আন্দোলন এর আমীর ডক্টর মাওলানা ঈসা শাহেদী, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন এর নায়েবে আমীর মাওলানা মজিবুর রহমান হামিদী, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম (মুফতী ওয়াক্কাস গ্রুপ)-এর মহাসচিব মাওলানা শেখ মজিবুর রহমান, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক, মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন, মাওলানা কুরবান আলী, অফিস ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা জি এম মেহেরুল্লাহ, মাওলানা এনামুল হক মূসা, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা মুহসিনুল হাসান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মাওলানা আব্দুন নূর, ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন খান, সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুল মুমিন, ছাত্র মজলিসের সেক্রেটারী জেনারেল মুহাম্মদ উবায়দুর রহমান প্রমূখ।

মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, দৈনিক ইনকিলাব এর সহকারী সম্পাদক মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, আওয়ার ইসলাম সম্পাদক হুমায়ূন আইয়ূব, ইনসাফ সম্পাদক সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার, বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুনীরুল ইসলাম, সবার খবর সম্পাদক আবদুল গাফফার, আর জে মামুন চৌধুরী প্রমুখ।

আরো উপস্থিত ছিলেন, সাহিত্যিক মাওলানা রুহুল আমীন সাদী, মাওলানা ওয়ালী উল্লাহ আরমান, মাওলানা শহিদুল ইসলাম ফারুকী প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন