স্কুলের পাঠ্যসূচিতে কোরআন অন্তর্ভুক্তের প্রস্তাব ভারতীয় মন্ত্রীর

ডেইলি ইসলাম : হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ ভারতের স্কুলগুলোতে সপ্তাহে অন্তত দুই দিন পবিত্র কোরআনসহ ছয়টি ধর্মীয় গ্রন্থ পাঠ্যবই হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব দিয়েছেন দেশটির  হিন্দুত্ত্ববাদী বিজেপি সরকারের নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী মেনেকা গান্ধী। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

কোরআনের পাশাপাশি অন্যান্য ধর্মগ্রন্থগুলোও পড়াতে বলেন তিনি। কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, এখন ধর্ম নিয়ে বিভিন্ন উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এর একটি কারণ হল যে শিশুরা অন্যান্য ধর্ম সম্পর্কে যথেষ্ট পরিমাণ জানে না, এ কারণে একটি অন্ধ বিদ্বেষ কাজ করে। এ জন্য শৈশবেই ধর্মীয় শিক্ষাদানের প্রস্তাব দেন মেনেকা গান্ধী। হিন্দু, জৈন, বৌদ্ধ, শিখ এবং ইসলামের মতো প্রধান ধর্মের ধর্মগ্রন্থগুলো পড়ানো হলে শৈশবেই তা ছাত্রদের মেধাবিকাশ করবে বলে জানান তিনি।

মেনেকা বলেন, আমরা স্কুলে পড়ার সময় নৈতিক জ্ঞানের বিষয়টি পড়ানো হতো, কিন্তু এখন আর তা পড়ানো হয় না। আমাদের মধ্যে কতজন নিজেদের ধর্মগ্রন্থ পাঠ করেছেন? আমি কোরআন পড়েছি। আমাদের মধ্যে কতজন জানে যে, নবী মোহাম্মদ যুদ্ধবিরোধী ছিলেন?

ভারতের স্কুলগুলোতে ইসলামসহ অন্যান্য ধর্মের ধর্মীয় গ্রন্থগুলো পড়ালে সহিংসতা অনেকাংশে কমে যাবে বলে মত দেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন