টাঙ্গাইলে শিশু ধর্ষণের পর হত্যায় যুবকের মৃত্যুদণ্ড

টাঙ্গাইলের মধুপুরে আট বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে কামরুল ইসলাম (২৪) নামে এক যুবককে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক খালেদা ইয়াসমিন এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত যুবক কামরুল ইসলাম মধুপুর উপজেলার ভুটিয়া গ্রামের সাবাশ আলীর ছেলে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) একেএম নাসিমুল আক্তার জানান, ২০১৪ সালের ১৯ মে মধুপুর উপজেলার ভুটিয়া গ্রামের আবুল কালামের আট বছরের মেয়ে বিথীর লাশ ওই এলাকার একটি আনারস বাগানের নালা থেকে উদ্ধার করা হয়।

পর দিন বিথীর বাবা বাদি হয়ে কামরুলকে আসামি করে ধর্ষণ ও হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত কামরুলকে গ্রেপ্তার করে আদালতে হাজির করে। কামরুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। জবানবন্দিতে সে জানায়, বিথীকে লিচু দেয়ার কথা বলে ওই বাগানে নিয়ে যায়।

পরে তাকে ধর্ষন করে। ধর্ষণের ফলে বিথী মারা গেলে তার লাশ লিচু বাগানের পার্শ্ববর্তী একটি আনারস বাগানে ফেলে রেখে সে সেখান থেকে চলে যায়। দীর্ঘ চার বছর পর আসামীর উপস্থিতিতে আদালতের বিচারক এই মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন।

জেএস/

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
দয়া করে আপনার নাম লিখুন